ঢাকা   ১৯শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ । ৪ঠা শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম :

শিবপুরে হত্যা মামলার ৭ লক্ষ টাকা আত্মসাৎ করেছে রাখিল

প্রতিবেদকের নাম
  • প্রকাশিত : রবিবার, জুন ২, ২০২৪
  • 257 শেয়ার

মোঃ কামাল হোসেন প্রধান জেলা প্রতিনিধি নরসিংদী:

 

নরসিংদী জেলা আওয়ামী লীগ এর সদস্য ও শিবপুর উপজেলা আওয়ামী লীগ এর যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোটর সাইকেল মার্কার প্রার্থী আলহাজ্ব আসাদুজ্জামান আসাদ এর নির্বাচনোত্তর মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। অদ্য ১/৬/২৪ ইং শনিবার বিকেলে শিবপুর পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে এ মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয় ।

শিবপুর উপজেলা আওয়ামীলীগ এর সহ-সভাপতি আজিজুর রহমান খান ভুলু মাষ্টার এর সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন নরসিংদী জেলা আওয়ামী লীগ এর সদস্য ও শিবপুর উপজেলা আওয়ামী লীগ এর যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বিগত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে মোটরসাইকেল মার্কার চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আলহাজ্ব আসাদুজ্জামান আসাদ ।

তিনি বলেন যারা আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করেছে তাদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য ব্যক্তি শিবপুর উপজেলা আওয়ামীলীগ এর সাধারণ সম্পাদক শামছুল আলম ভূইয়া আলম ভূইয়া রাখিল ,সে এমন কোন ষড়যন্ত্র নেই, সে আমার বিরুদ্ধে করে নাই, নিজে তো দাঁড়াইতে পারে নাই বরং ভুলু মাস্টার, জুনায়েদুল হক ভূঁইয়া জুনু, পারভেজ সাহেব, মুরাদ সাহেব, কাদের সাহেব, যারা আমার সাথে ছিল তাদেরকে বিভ্রান্ত করেছে ,শিবপুর উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি মহাসিন নাজির স্যার কে, সারা উপজেলায় আওয়ামীলীগ এর সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক যারা আমার নির্বাচন করার জন্য নেমেছিল তাদেরকে বিভ্রান্ত করেছে , বাঘাব ইউনিয়ন আইয়ুবপুর ইউনিয়ন ,মাছিমপুর ইউনিয়ন ব্যতীত সারা উপজেলায় বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে আমার নির্বাচন বন্ধ করে দিয়েছে ।

তাদের প্রতি আমার রাগ নেই ,খুব নেই ,মিস্টার রাখিল সাহেব আপনি তো সারা জীবন প্রতারণা করেছেন, দালালি করেছেন ,বাটপারি করেছেন । আপনি তো চেক প্রলোভন দেখিয়ে আড়াই লক্ষ টাকা পুরাদিয়ার কাশেম, শহীদুল্লাহ মন্ত্রী মহোদয়ের পিএস বাদলের কাছ থেকে টাকা নিয়েছেন, তাদের লাইসেন্সে আপনি একাউন্ট করে টাকা উঠিয়ে নিয়েছেন।

১৯৭৮ সালে হারুন খা বলেছিল তোমরা মামলা কর তারে জেলে দিব , আমি আপনার জন্য হারুন-খার পায়ে ধরেছি , আপনি আমার পায়ে ধরেছেন । এই কামরুল, বাদল সাক্ষী রাখিল আমার পায়ে ধরেছে বাঁচার জন্য ।অনেকেই সাক্ষী রাখিল বলেছে তুই এবারের মত আমারে ক্ষমা করে দে, আমার বিষয়টি নিষ্কৃতি করে দে, সারা জীবন তোরে মনে রাখবো। রাখিল সাহেব আপনি পারলে শহীদুল্লাহ ,কাসেম এরা এখনো জীবিত আছে । আপনি যদি পারেন প্রতিবাদ জানাইবেন , আপনি আমার পায়ে ধরা কে আমি লজ্জা বোধ করে আপনার প্রতি সম্মান বোধ করে আপনার মামলা আমি শেষ করে দিয়েছিলাম।

আপনি মিথ্যা ,ভূয়া ,জাল সার্টিফিকেট দিয়ে শিবপুর মডেল প্রাথমিক বিদ্যালয় সভাপতিত্ব করছেন, রাখিল সাহেব আপনি তো বি এ পরীক্ষাই দেন নাই আপনি কিভাবে সভাপতিত্ব করেছেন। মোহন সাহেব বারবার অনুরোধ করেছেন তুমি এ পথে এগিয়ো না তখনও আপনি আমাকে ফোনে হাতে পায়ে ধরেছেন , বলেছেন তুই আমারে মেরে ফেলবি আমাকে বাচা। আপনার ষড়যন্ত্র আমি জানি আপনার মুখোশ আরো উন্মোচন করিব ,রাখিল সাহেব আরো অনেক কিছু আছে সেগুলা রাজনীতিতে আপনি মাঠের নামেন, তার পর আমি আপনার বিষয় দেখবো ইনশাআল্লাহ। আজকে এখানে উপস্থিত তিনি গ্রামীণ ব্যাংকে গেছে লোন পরিশোধ করার জন্য রাখিল লোন পরিশোধ করেননি সেই লোক গুলো আজকে ও দুঃখে দুঃখে মরছে , চৈতন্যা একটি মার্ডার মামলায় ৭ লক্ষ টাকা আপনি আত্মসাৎ করেছেন । মোহন সাহেব সেখান থেকে ভোট পাইনি শুধু তার কারনে। এই যে বাদল দড়ি পুরার তার লোন শেষ করে দিবে বলে তার কাছ থেকে টাকা নিয়েছে , সেই টাকা কোনদিন ফেরত দেয় নাই । আমি শুধু এইটুকু বললাম রাখিল সাহেব আপনার রাজনীতি শেষ আপনার রাজনীতি চিরতরে শিবপুর থেকে শেষ । আজকে আওয়ামী লীগ শিবপুরে খন্ড দিখণ্ড হয়ে গেছে আজকে আওয়ামী লীগ ধ্বংসের পরিণত হয়েছে, আওয়ামী লীগ আজকের থাকবে কি থাকবে না সন্দেহের সৃষ্টি হয়েছে। আমার সাথে যারা আওয়ামীলীগ ছিল আমি

মনে করি বিশ্বাস করি তারাই প্রকৃতপক্ষে আওয়ামীলীগ এর সৈনিক , যারা উড়ে এসে জুড়ে বসেছে টাকা দিয়ে কিনে নিয়েছে তারা আওয়ামীলীগ এর সাচ্ছা কর্মী না । সারা জীবন নির্যাতন অত্যাচার সহ করেছি সে বক্তব্য নির্বাচনের সময় অনেক দিয়েছি । উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে যে দিন প্রত্যাহারের শেষ দিন, সেই দিন বলে আসাদ বসে গেছে আবার যখন বক্তব্য দিলাম আসাদ বসে নাই, আবার আমার কর্মীরা গণজোয়ার সৃষ্টি করেছে। নির্বাচনের তিন দিন আগে বলে আসাদ বসে গেছে আমি এ কথা শুনে যখন বক্তব্য দেই, সেদিকে বক্তব্য দেই সে দিক শান্ত , অন্য দিক অশান্ত। আমি নির্বাচনের পূর্বেই বলেছি আমি স্বল্প আয়ের মানুষ ,আমি আপনাদের কে বলেছি ,আমি দালালি করি না, আমি বাটপারি করি না ,আমি জোচ্চুরি করিনা ,আমি মিথ্যা কথা বলি না, যে লোক মিথ্যা কথা বলে না সে লোকটি জালিয়াতি করতে পারে না। আমাকে ধ্বংস করার জন্য বারবার ষড়যন্ত্র করছে এই আরিফ সাহেবরা আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে ফাঁসির দড়ি নিয়ে, কিছূতেই পারছে না আমাকে দাবিয়ে রাখতে । এবার হারুনখার ছেলে আরো কিছু কুচুক্তি মহল আমার বিরুদ্ধে বক্তব্য দিয়েছে আমাকে ফাঁসির দড়ি দিয়ে পোস্টার লাগিয়েছে, আজকে হারুনখার ছেলে এক বন্ধু আমার কাছে সকালে আসছে, আমার সাথে ১০ মিনিট কথা বলার পর বলছে ভাই কি কারনে যে হারুন-খা পুত্র কি কারনে যে আপনার বিরুদ্ধে, সেটা সে বলে না, শুধু বলে সে আপনার বিরুদ্ধে, কারণ বলতে পারে না, তবে মনে হয় কোন জায়গা থেকে কিছু পায় এই কারণে সে আপনার বিরুদ্ধে ।

শিবপুর উপজেলা আওয়ামীলীগ এর সহ-সভাপতি আজিজুর রহমান খান মাস্টার এর সভাপতিত্বে নির্বাচনোত্তর মতবিনিময় সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, নরসিংদী জেলা আওয়ামী যুবলীগ এর সহ-সভাপতি জুনায়েদুল হক ভূইয়া জুনু, শিবপুর উপজেলা আওয়ামী লীগ এর দপ্তর সম্পাদক সৈয়দ মাসুদ পারভেজ, আয়ুবপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ এর সাধারণ সম্পাদক আবু সাইদ, বাঘাব ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ এর সাধারণ সম্পাদক জসিম উদ্দিন বিএসসি, শিবপুর উপজেলা কৃষক লীগ এর সাধারণ সম্পাদক আলতাফ হোসেন, শিবপুর উপজেলা তাঁতী লীগ সভাপতি সৈয়দ আলম, রাজন রায় প্রমুখ।

এ সম্পর্কিত আরো সংবাদ
© স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২৪