ঢাকা   ২৫শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ । ১১ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম :
পঞ্চগড়ে জাতীয় ফলমেলা উদ্বোধন রাজারহাটে বাল্য বিবাহ ও শিশুদের প্রতি সহিংসতা বন্ধে স্থানীয়দের সাথে সংলাপ অনুষ্ঠিত ধনবাড়ীতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট অনু‌ষ্ঠিত নওগাঁর ছিলিমপুর ও রসুলবিল এলাকায় দুইটি রাসেল ভাইপার সাপ মারলেন স্থানীয়রা নরসিংদীর আকাশে বার বার চক্কর দেয় উড়োজাহাজ অতঃপর রাসেলস ভাইপার নিয়ে বনবিভাগের বিশেষ পরামর্শ বৃষ্টির দিনে প্রচন্ড তাপদাহ রোদ আর গরমে বয়স্কদের আড্ডা নওগাঁ মোটর সাইকেল ও মাইক্রো বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে এক সেনা সদস্যর মৃত্যু পাবনা ঈশ্বরদীর থানা পুলিশের অভিযানে চাঞ্চল্যকর কিশোর তপু হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটন সহ আটক – ০২ এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠান: আত্মশুদ্ধির মাধ্যমে সমাজ পরিবর্তন সম্ভব – আবুল কালাম আজাদ

সৈয়দপুরের স্বামীহারা বেবি প্রকল্পের ঘর পাবে কি !

প্রতিবেদকের নাম
  • প্রকাশিত : মঙ্গলবার, মার্চ ১২, ২০২৪
  • 39 শেয়ার

শোয়েব হোসেন,  বিশেষ প্রতিনিধি: 

মুজিব বর্ষে একজন মানুষও গৃহহীন থাকবেনা,প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এই নির্দেশনায় বাস্তবায়ন হয়েছে আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে জমি ও গৃহ প্রদান।এমতাবস্থায় নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলায় কামারপুকুর ইউনিয়নের কলা বাগান এলাকায় স্বামী হারা এক সন্তানের জননী বেবি আকতার মানুষের আশ্রয় দেওয়া জরাজীর্ণ ঘরে বসবাস করলেও এই প্রকল্পের আওতায় তার ভাগ্যে জোটেনি সরকারি বরাদ্দের ঘর। সন্তানকে নিয়ে পথে পথে ঘুরছেন একটি ঘরের আশায়।

দেখা যায়,উপজেলার কামারপুকুর ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ডের কলাবাগান গ্রামের হতদরিদ্র ভূমিহীন মৃত: মমিনুর রহমানের স্ত্রী বেবি আকতার ২ সদস্যের পরিবার অন্যের আশ্রয় দেওয়া জায়গায় অতি কষ্টে বসবাস করে আসছে বছরের পর বছর ধরে।মনে হয় দেখার কেউ নেই।বেবি আকতারের স্বামী মমিনুর রহমান গত ৮ বছর আগে অকাল মৃত্যুবরণ করেছেন।অতি কষ্টে একটি ১৩ বছরের ছেলে সন্তানকে নিয়ে সুতলি ফ্যাক্টরিতে কাজ করে একাই সংসারের ঘানি টানছেন।বেবি আকতার সাংবাদিকদের কাছে কেঁদে কেঁদে বলেন,আমার মৃত স্বামীর কোন জমাজমি নেই।আমি ভূমিহীন।আমার নিজস্ব বাড়ি না-থাকায় প্রথমে অন্যের আশ্রয়ে ভাড়া বাসায় বসবাস করেছিলাম।সেখানে সমস্যা হলে বর্তমান সুতলি ফ্যাক্টরিতে অতি কষ্টে আছি। আমার যে সন্তান সে মাদ্রাসায় আবাসিকে থাকে।জীবন যুদ্ধে অকালে স্বামীকে হারিয়ে এক সন্তানকে নিয়ে সংসারের একাই ঘানি টানছেন বেবি।তিনি আরও বলেন,আমার বসতবাড়ী না থাকায় টিন সেডের বাড়ি ভাড়া নিয়েছিলাম। সঠিক সময়ে বাসা ভাড়া পরিশোধ করতে না পারায় বের করে দেয় মালিকপক্ষ।

এলাবাসীরা জানান,বেবি একজন হতদরিদ্র ভূমিহীন।কয়েকবছর আগে স্বামী মমিনুর মৃত্যু বরণ করেছেন। তার ছোট একটি মাসুম ছেলে বাচ্চাকে নিয়ে বসবাস করার জন্য একটি ঘর খুবই দরকার।কামারপুকুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন সরকার বলেন,ইতিমধ্যে আবেদন পেয়েছি এবং সুপারিশ করা হয়েছে। আশা করি ঘর পাবে।

এ বিষয়ে কথা হয় উপজেলা নির্বাহী অফিসার মুহাম্মদ ইসমাঈল হোসেনের সঙ্গে। তিনি জানান,যদি ওনি প্রকৃত ভূমিহীন হয় আমাদের কাছে আবেদন করলে উপজেলা কমিটি যাচাই-বাছাই করে ব্যবস্থা নেবে।

এ সম্পর্কিত আরো সংবাদ
© স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২৪