ঢাকা   ১৯শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ । ৪ঠা শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম :

মৌলভীবাজারে আগাম বৃষ্টিতে প্রাণ ফিরে পেয়েছে চা বাগান গুলো

প্রতিবেদকের নাম
  • প্রকাশিত : রবিবার, মার্চ ১০, ২০২৪
  • 38 শেয়ার

অজিত দাস, মৌলভীবাজার প্রতিনিধি: 

প্রায় তিন মাস আগ থেকেই চা বাগানের সেকশনগুলোতে চা গাছ ছাটাই করার কাজ শুরু করেছিল বাগান কর্তৃপক্ষ। চা গাছ ছাটাই করার ফলে চা বাগানে রুক্ষ শুষ্ক ভাব চলে আসছিল। চা গাছের প্রাণ ফিরিয়ে আনতে দেওয়া হচ্ছিল কৃত্রিম পানি। চা বাগানে যখন শীতের এই সময়ে রুক্ষ শুষ্কভাব এই সময়ে আশীর্বাদ হয়ে এসেছে আগাম বৃষ্টিপাত।আগাম বৃষ্টির কারণে ছাটাই করা চা গাছে এসেছে নতুন পাতা।

বিভিন্ন পোকামাকড়ের আক্রমণ থেকে রক্ষা পেয়েছে চা-গাছ। আগাম বৃষ্টির ছোঁয়ায় নব প্রাণ ফিরে পেয়েছে চা গাছগুলো।আগাম বৃষ্টির ফলে চায়ের বাম্পার ফলনের আশা করছেন চা বাগান সংশ্লিষ্টরা। দ্রুততম সময়ের মধ্যে মৌসুমের আগেই চা প্রক্রিয়াজাতকরণে যেতে পারবেন বলে আশা করছেন মৌলভীবাজারের বড়লেখার বিভিন্ন চা বাগানের কর্মকর্তারা।উপজেলার বাংলাদেশ চা বোর্ডের আওতাধীন নিউ সমনবাগ চা বাগান,পাথারিয়া, রশিদাবাদ, শাহবাজপুর, কুমাশাইল, বাহাদুরপুর পাল্লাথল, অহিদাবাদ, ছোট্টলেখ ফতেহবাদসহ বিভিন্ন চা বাগানে গিয়ে দেখা দুই তিন মাস আগে ছাটাই করা চা বাগানের চা গাছগুলোতে নতুন পাতা গজাতে শুরু করেছে।

ছাটাই করা চা গাছে নতুন পাতা আসায় ও বৃষ্টির পানিতে ধুলোময়লা দূর হয়ে যাওয়ায় সুন্দর পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে চা বাগানে।শ্রীমঙ্গল আবহাওয়া পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রের কর্মকর্তা আনিসুর রহমানের দেওয়া তথ্যমতে, গত ২১ ফেব্রুয়ারি থেকে ২৩ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত মৌলভীবাজারে মোট বৃষ্টিপাত হয়েছে ৭৩ মিলিমিটার। শীত এই বৃষ্টি পাত চা বাগানের জন্য অনেক উপকারী। নিউ সমনবাগ চা বাগানের ব্যবস্থাপক মোহাম্মদ আলী বলেন, গত বছর এই সময়ে বৃষ্টিপাত হয়নি। এবছর আমরা আগাম বৃষ্টি পেয়েছি। এই বৃষ্টিতে চা বাগানে প্রাণ ফিরে পেয়েছে। ছাটাই করা চা গাছে নতুন পাতা বের হচ্ছে।

বৃষ্টি হওয়ায় চা বাগানে কৃত্রিমভাবে পানি দিতে হয়নি কয়েকদিন। এতে করে উৎপাদন খরচও কমেছে। সর্বোপরি এই বৃষ্টি চা বাগানের জন্য গুরুত্বপূর্ণ ছিল। ছাঁটাই করা গাছে আগাম পাতা ধরবে। এতে করে আমরা শীঘ্রই চা-পাতা তুলতে পারব। বাংলাদেশ টি স্টাফ এসোসিয়েশনের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক নিউ সমনবাগ চা বাগানের কর্মরত বাবু গঙ্গেশ রঞ্জন দেব বলেন, বৃষ্টিপাত চায়ের জন্য অনেক উপকারী। বিশেষভাবে নতুন চা গাছ যেগুলো আছে তার জন্য বেশি উপকারী। তারপর প্রুনিংকৃত চা গাছগুলো দ্রুত কুঁড়ি ছাড়বে। অলরেডি চা গাছগুলো কুঁড়ি ছাড়তে শুরু করে দিয়েছে। বৃষ্টির জন্য দ্রুত চা–গাছের কুঁড়ি চলে আসবে। আমরা তাড়াতাড়ি চা পাতা চয়ন ও চা প্রক্রিয়াজাতকরণ যেতে পারব।

এ সম্পর্কিত আরো সংবাদ
© স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০২৪